Home অন্যান্য গাবতলী হাটে এলো রাজস্থানের উট, দাম জোড়া ৬০ লাখ

গাবতলী হাটে এলো রাজস্থানের উট, দাম জোড়া ৬০ লাখ

সংগৃহীত ছবি

আর কয়েক দিন পরই কোরবানির ঈদ। এরই মধ্যে ঢাকায় পশুর হাট বসে গেছে। সেখানে আসা শুরু করেছে কোরবানির পশু। এখনও দর-কষাকষির প্রবণতাই বেশি ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে। তবে দ্রুতই এই অবস্থা কাটবে বলে আশা বিক্রেতাদের।

প্রতি ঈদুল আজহায় বিত্তবানরা বড় গরুর পাশাপাশি উট-দুম্বা কোরবানি দিয়ে থাকেন। তাদের জন্য এবারও গাবতলী পশুর হাটে ভারতের রাজস্থানের পুষ্কর থেকে আনা উট-দুম্বা তোলা হয়েছে। এক জোড়া উটের দাম হাঁকা হচ্ছে ৬০ লাখ টাকা। সে হিসেবে একটি উটের ৩০ লাখ টাকা দাম হচ্ছে।

সোমবার (১০ জুন) গাবতলী পশুর হাটে গিয়ে এমনটি দেখা যায়। এসব উট-দুম্বা রাখা হয়েছে হাটের প্রধান সড়কের পাশে। আর উৎসুক জনতা ঘিরে ধরেছে এই মরুভূমির জাহাজকে। কেউ সেলফি তোলায় ব্যস্ত, কেউ আবার ভিডিও করছেন। তবে উট দেখার মানুষ থাকলেও ক্রেতা চোখে পড়েনি একজনও।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় উটের মেলা হয় রাজস্থানের পুষ্করে। শুধুমাত্র এই মেলা দেখার জন্য প্রচুর দেশি-বিদেশি পর্যটক এখানে আসেন। পর্যটকদের পাশাপাশি বাংলাদেশ থেকে অনেক ক্রেতাও যান উট কিনতে। গাবতলী কোটবাড়ি এলাকার শিপু দুটি উট এক মাস আগে কিনেছেন। এরপর সড়কপথে উট দুটি বৈধ উপায়ে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

মালিকের দাবি, প্রতি উটে ১৫-১৭ মণ মাংস মিলবে। তিনি উটের ব্যবসার সঙ্গে ১৫-১৬ বছর জড়িত বলে দাবি করেন। পরিচর্যা হিসেবে ঘাস, কুড়া ও ভুসি খাওয়ানো হচ্ছে উট দুটিতে।

হাটে দুম্বাও বিক্রি হচ্ছে। এই দুম্বাগুলোও রাজস্থান থেকে দেশে আনা হয়েছে। প্রতি দুম্বার দাম হাঁকা হচ্ছে ৩ লাখ টাকা। দাবি করা হচ্ছে এসব দুম্বা থেকে ১০০ কেজি মাংস মিলবে। দুম্বা মূলত ভেড়ার মতো দেখতে। পালনও একইভাবে করা হয়। এরা প্রতিদিন ভুসি, খৈল, ডালের খোসা ও চালে কুঁড়ো এবং নেপিয়ার ঘাস খায়।

সূত্র: আরটিভি অনলাইন।