Homeসব খবরবিনোদন‘তুফান’ এর দখলে শতাধিক হল

‘তুফান’ এর দখলে শতাধিক হল

নাম ঘোষণার পর থেকেই আলোচনায় রায়হান রাফী পরিচালিত সুপারস্টার শাকিব খান অভিনীত তারকাবহুল ছবি ‘তুফান’। মুক্তির সময়ে ছবিটি নিয়ে উন্মাদনা থাকবে, এটা বলা যেন বাহুল্যই! সেই প্রমাণ ‘তুফান’ রাখলো দেশের অধিকাংশ প্রেক্ষাগৃহ নিজের করে নিয়ে!

এমনিতেই হল সংকটে দেশ। নিয়মিত হলের সংখ্যা হাতে গোনা ৬০ থেকে ৭০টির মধ্যে! শুধুমাত্র বছরে দুই ঈদে শ’খানেকের মতো হল চালু করে দেখানো হয় নতুন ছবি! আর বরাবরই সেব হলে থাকে শাকিব খানের দাপট!

এবারও হচ্ছে না ব্যতিক্রম। দেশের আধুনিক প্রেক্ষাগৃহ থেকে শুরু করে মফস্বলের অনিয়মিত সিঙ্গেল স্ক্রিনেও চলবে শাকিবের ‘তুফান’। দর্শক চাহিদায় বরাবরই শাকিব এগিয়ে, তার উপর এবার যুক্ত হয়েছে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্ট!

এরমধ্যে অন্যতম, সমকালীন দর্শকের কাছে বেশ জনপ্রিয় রায়হান রাফীর নির্মাণ। গেল বছরে তার ‘সুড়ঙ্গ’ এবং আগের বছরে ‘পরাণ’ তুমুল হিট এনে দেয়। সেই সঙ্গে ‘তুফান’-এ আছে আরেক জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। তার অভিনীত সবগুলো ছবিই কমার্শিয়ালি হিট! আছেন কলকাতার মিমি চক্রবর্তী, বাংলাদেশের জনপ্রিয় সিনেমা ‘আয়নাবাজি’র নায়িকা মাসুমা রহমান নাবিলার মতো অভিনেত্রীও! ঈদের সবচেয়ে আলোচিত এই ছবিটি হল পেয়েছে ১২৩টি!

‘তুফান’ -এর দাপটে এই ঈদে অন্য ছবি প্রচারণাতেও জোয়ার তৈরীর সুযোগই পায়নি। কোনো ছবির টিজার, ট্রেলার নিয়েও সেইভাবে চোখে পড়েনি আলোচনা। ‘ময়ূরাক্ষী’র টিজারকে ইম্প্রেসিভ বললেও ঈদের ছবি হিসেবে পরবর্তীতে যে প্রচার প্রচারণার দরকার ছিলো, তার ঘাটতি দেখা গেছে।

মূলত শুরু থেকেই ‘তুফান’ এর যে জোয়ার তৈরী হয়েছে, এবং প্রচার প্রচারণায় যেভাবে দর্শক সাড়া পেয়েছে- তার কাছে অন্য ছবির যে কোনো কর্মপ্রচারণাই কাজে আসেনি। তুফানে মত্ত দর্শককে অন্য ছবি নিয়ে খুব একটা আগ্রহী হতে দেখা যায়নি! যারই ফলশ্রুতিতে অন্য সিনেমাগুলো খুব বেশী প্রেক্ষাগৃহ পায়নি।

তবে সিনেমা সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রথম সপ্তাহের পর থেকেই মূলত আসল যুদ্ধ। অতীতের উদাহরণ টেনে অনেকে বলছেন, সিনেমার মেধা ভালো হলে দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই ভালো ছবিটির বাড়বে হল!

এরমধ্যে রাশিদ পলাশ নির্মিত ‘ময়ূরাক্ষী’ সিনেমাটি পেয়েছে মাত্র ২টি হল। যেখানে সবশেষে ঈদের ছবির তালিকায় যুক্ত হওয়া সুমন ধর পরিচালিত ‘আগন্তুক’ পেয়েছে ৫টি হল!

বাকি দুই ছবির মধ্যে ১৫টি সিনেমা হলে মুক্তি পেল এমডি ইকবাল পরিচালিত ছবি ‘রিভেঞ্জ’, এবং মোস্তাফিজুর রহমান পরিচালিত ‘ডার্ক ওয়ার্ল্ড’ পেয়েছে ১২টি প্রেক্ষাগৃহ।

Advertisement