Homeসব খবরবিনোদন‘মিডিয়ায় কাজ করা মানুষদের সংসার টেকে না’

‘মিডিয়ায় কাজ করা মানুষদের সংসার টেকে না’

২০০৯ সালে ভালোবেসে নির্মাতা মুরাদ পারভেজের সঙ্গে ঘর বেঁধেছিলেন অভিনেত্রী সোহানা সাবা। কিন্তু ২০১৫ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ভেঙে যায় সেই ঘর। গত বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ছিল বিবাহবি’চ্ছেদের ৮ বছর পূর্তি। বি’চ্ছেদের পরের এই ৮ বছরকে অভিনেত্রীর স্বাধীনতার বছর বলে উল্লেখ করেছেন সাবা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটা পোস্ট করেন। সেখানে তিনি শুরুতেই লিখেন, ‘মিডিয়ায় কাজ করা মানুষদের সংসার টেকে না’। এই কথাটা কিন্তু তার নয়। কিন্তু বারবার এই কথাটাই তাকে শুনতে হতো। কে বলত এই কথা? কারো নাম উল্লেখ না করলেও বুঝা যাচ্ছে বিচ্ছেদের কারনে পরিবার, কাছের মানুষ বা সমাজের মানুষের কাছ থেকে এই কথা শুনে যাচ্ছেন।

স্মৃতিচারণ করে সোহানা সাবা লেখেন, ‘এই কথা শুনে শুনে কান পঁচে যাওয়ার কারণেই প্রায় ১০ বছর দাঁত চেপে পড়েছিলাম। ঈদের দ্বিতীয় দিন রাত পৌনে বারোটায় একা একটা রিকশা নিয়ে পুরান ঢাকায় খালামণির বাসায় যখন যাচ্ছিলাম, তখন বাসায় আবার অত্যাচারিত হওয়ার চেয়ে রাস্তায় অজানা অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটে যাওয়ার ভয়কে তুচ্ছ মনে হচ্ছিল। অথচ ভেবেছিলাম বড় করে এক দশক সেলিব্রেট করব। সবাইকে চমকে দেব আমরাও পারি! থাক না সে ডিকেডে সবার অজানা রক্তাক্ত ইতিহাস।’

অভিনেত্রী বলেন, ‘যে কোনো সম্পর্কের ক্ষেত্রেই ভাবনাটা সমান্তরাল দুই পাশ থেকেই আসতে হয়। আজকে যখন নিজেকে দেখি অবাক লাগে। কত চড়াই-উতরাই পাড় করে আজ কি সুন্দর জীবন। অলমোস্ট ৯ বছরের ছেলের মা। যে তার মায়ের দিকে তাকিয়ে নিশ্চিন্ত থাকতে পারে যে, তার কোনো ভয় নেই। তার আশেপাশে শক্ত আরামের দেয়াল। তার মানে কিন্তু এই নয়, আমি আমার জীবন উপভোগ করি না। আমি আমার জীবন পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করি।’

প্রতিনিয়ত নিজেকে ভাঙাগড়ার মধ্য দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যান সাবা। তা স্মরণ করে সাবা বলেন, ‘যা হবার ছিল বা হতে পারতাম না ভেবে, প্রতিদিন নিজেকে ভেঙে গড়ি, প্রতিদিন আমি আরো সুন্দর, শক্ত, আধুনিক, পিওর হই। শুকুর আলহামদুলিল্লাহ।’ হ্যাশ ট্যাগ দিয়ে লিখেন, ‘আমার স্বাধীনতার ৮ বছর।’

২০০৯ সালে পরিচালক মুরাদ পারভেজের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন সাবা। ২০১৪ সালের ১৮ অক্টোবর তাদের সংসার আলো করে জন্ম নেয় একটি পুত্র সন্তান।

Advertisement