Wednesday, September 28, 2022
Homeসব খবরবিনোদন'বিচ্ছেদ হলেও আমরা বন্ধু ছিলাম, আছি, থাকবো'

‘বিচ্ছেদ হলেও আমরা বন্ধু ছিলাম, আছি, থাকবো’

ফেসবুকে বিচ্ছেদের ইঙ্গিত দিয়েছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। সেই স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে যোগাযোগ করা হলে বিয়ে বিচ্ছেদের কথা নিশ্চিত করেন তিনি। তবে রোববার দুপুরের দিকে মাহির স্বামী মাহমুদ পারভেজ অপু জানান, বিচ্ছেদের বিষয়টি তিনি মাহির ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে জেনেছেন। এ বিষয়ে মাহির সঙ্গে কথা বলে মন্তব্য করবেন বলেও জানান অপু।

অপু অবশ্য বলেন, মাহি এবং তিনি আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছেন। তবে এখনও বিচ্ছেদ হয়নি। বিচ্ছেদের আইনগত প্রক্রিয়া চলছে।

মাহিয়া মাহি তার স্ট্যাটাসে বিচ্ছেদের বিষয়টি খোলাসা না করলেও অপু তার অবস্থান পরিষ্কার করার চেষ্টা করেন। অপু বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে আমাদের মধ্যে সমস্যা চলছে। সেটা প্রায় বছর খানেক হবে। এভাবে তো চলা যায় না! তাই বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তবে দু’জনই আন্তরিকতার সঙ্গে ‘বিচ্ছেদ ঠেকানোর’ চেষ্টা করেছেন বলে জানান অপু। তিনি বলেন, ‘বিচ্ছেদ ঠেকাতে আমি আর মাহি কম চেষ্টা করিনি! কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না! বিচ্ছেদ আমাদের নিতেই হচ্ছে। আমাদের দুই পরিবার মিলেই এমন সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। প্লিজ কেউ ভুলভাবে ব্যাখা করে বিষয়টি ভিন্নভাবে নিবেন না।’

অপু আরও বলেন, ‘আমাদের সংসার আর টিকছেনা- এটা সত্যি। তবে বিচ্ছেদ হলেও আমরা বন্ধু ছিলাম, আছি, থাকবো।’

মাহিয়া মাহির সংসার ভাঙার খবরে আলোচনা তৈরি হয়েছে শোবিজ অঙ্গনে। শনিবার রাত ১টা ৩০ মিনিটে স্বামী মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে বিচ্ছেদ নিয়ে স্ট্যাটাস দেন মাহি। স্ট্যাটাসে মাহি লিখেন, ‘এই পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো মানুষটার সাথে থাকতে না পারাটা অনেক বড় ব্যার্থতা। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শ্বশুর বাড়ির মানুষগুলোকে আর কাছ থেকে না দেখতে পাওয়াটা, বাবার মুখ থেকে মা জননী, বড় বাবার মুখ থেকে সুনামাই শোনার অধিকার হারিয়ে ফেলাটা সবচেয়ে বড় অপারগতা। আমাকে মাফ করে দিও। তোমরা ভালো থেকো। আমি তোমাদের আজীবন মিস করবো।’

সিলেটের মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে ২০১৬ সালের ২৪ মে বিয়ে হয় মাহিয়া মাহির। অপু যুক্তরাজ্য থেকে কম্পিউটার প্রকৌশল নিয়ে পড়ালেখা করে সিলেটে নিজের পারিবারিক ব্যবসা দেখাশোনা করেন। তাদের পাঁচ বছরের দাম্পত্য জীবনে ইতি ঘটছে।

Advertisement