Saturday, September 24, 2022
Homeসব খবরজাতীয়‘প্রয়োজন হলে প্রত্যেক জেলায় জেলায় আলাদা করে লকডাউন দেয়া...

‘প্রয়োজন হলে প্রত্যেক জেলায় জেলায় আলাদা করে লকডাউন দেয়া হবে’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক বলছেন, মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনে জেলায় জেলায় আলাদা করে লকডাউন দেয়া হবে। আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চীনের সিনোফার্মের টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের মতো যে সব সীমান্তবর্তী জেলায় করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে সেগুলো আইসোলেটেড করে রাখার পাশাপাশি প্রয়োজনে আলাদা করে লকডাউনও দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক। তিনি বলেন বলেন, এই পাঁচ লাখ টিকা দিয়ে আমরা আড়াই লাখ মানুষকে ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনতে পারব। যাদের টিকা দানের আওতায় আনা হবে তার বেশির ভাগই হবে মেডিকেল শিক্ষার্থী ও ফ্রন্টলাইনার ও চিকিৎসা কর্মীদের।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে এক-দুই জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানতে পারলাম। আগে থেকে আমাদের সাবধান হতে হবে। ভয়ের কিছু নেই, আতঙ্কের কিছু নেই। তিনি বলেন, যারা বয়স্ক এবং যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেছে তাদের এই বিষয়ে বেশি করে সতর্ক থাকতে হবে। আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চীনের সিনোফার্মের টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, এরই মধ্যে আমি বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানিকে নির্দেশনা দিয়েছি যাতে এই ফাঙ্গাসের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ এখন থেকে তৈরি করে। আল্লাহ না করুক যদি আমাদের দেশে রোগী বাড়ে তাহলে যেন যথাযথ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করা যায়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল বাশার খুরশীদ আলম বলেন, আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের সুরক্ষিত রাখতে চাই। শুধু সরকারি মেডিক্যালের শিক্ষার্থী নয়, বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষার্থীদেরও এই টিকা দেয়া হবে। তিনি বলেন, রাজধানীর চারটি মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষার্থীদের দেয়া হবে চীনের টিকা। অপর তিন প্রতিষ্ঠান হলো শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ ও মুগদা মেডিক্যাল কলেজ।

এ ছাড়া আগামী ১০ দিনের মধ্যে সারা দেশে সরকার কলেজে, হাসপাতালে এই টিকা দেয়া শুরু হবে বলে জানান। খুরশীদ আলম বলেন, করোনার কারণে মেডিক্যাল কলেজের অনেকগুলো পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হয়নি। এমন অবস্থা চলতে থাকলে সামনে চিকিৎসক সংকটে পড়বে দেশ। যে কারণে মেডিক্যাল পরীক্ষাগুলো কীভাবে নেয়া যায় সেটাও ভাবছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বেলা ১১টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ছাত্রী সমতাকে টিকা দেয়ার মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। এই হাসপাতালে আজ ২৫৭ শিক্ষার্থীকে চীনের তৈরি টিকা দেয়া হবে।

Advertisement