Monday, September 26, 2022
Homeসব খবরজেলার খবর‘অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের মেয়ে ইতালি যাচ্ছে’

‘অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের মেয়ে ইতালি যাচ্ছে’

ভালোবাসার টানে ইতালি থেকে এসে আলী সান্দ্রে চিয়ারোমিন্তে (৩৯) নামে এক যুবক বিয়ে করেন ঠাকুরগাঁওয়ের বালীয়াডাঙ্গীর তরুণীকে। তরুণী রত্না রানী দাসের (১৯) বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের বালীয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের খোকোপাড়া গ্রামে। তার বাবা দিনমজুর মারকুস দাস। সোমবার (২৫ জুলাই) রাতে সনা’তন ধ’র্মের রীতি অনুযায়ী দুজন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

ইতোমধ্যে তাদের বিয়ের এক মাস পেরিয়ে গেছে। সম্প্রতি আলী সান্দ্রে চলে গেছেন নিজ দেশ ইতালিতে। এই নিয়ে এলাকায় চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। কেউ বলছেন রত্নাকে রেখে উধাও হয়েছেন ইতালিয়ান যুবক। আবার আর কেউ বলছেন অর্থের লোভে তার পরিবার ইতালিয়ান যুবকের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন।

তবে এই বিষয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে পরিবারের কেউ কথা না বললেও তারা জানায়, ভিসা না হওয়ায় যেতে পারেননি মারকুস দাসের মেয়ে রত্না। এ বিষয় রত্নার চাচা সমবারু গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের জামাইকে নিয়ে সবাই ভুল প্রচারণা করছেন। আমরা নিয়মিত রত্নার জামাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে যাচ্ছি। তিনি বলেছেন খুব অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের মেয়েকে ইতালি নিয়ে যাবেন।

চাড়োল ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আরিফুল ইসলাম বলেন, ইতালিয়ান সেই যুবক সম্পর্কে আমরা নানা রকমের তথ্য শুনছি যে তার স্ত্রী সন্তান রয়েছে। তবে কারো বিষয় পুরোপুরি নানা যেনে এরকম মন্তব্য করা ঠিক না। মেয়ের চাচা জোসেফ সেই যুবকের সঙ্গে ইতালিতে একসঙ্গে কাজ করেন। আর তার চাচা নিজে দেশে এসে তাদের বিয়ে দিয়েছেন। একজন চাচা তার আপন ভাতিজিকে কখনো বিপদে ফেলবে না বলে আমরা মনে করছি।

এ বিষয়ে চাড়োল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দিলীপ কুমা বলেন, আমরা জানতে পেরেছি ইতালি থেকে আসা সেই যুবক নাকি চলে গেছেন। তার চলে যাওয়া নিয়ে এলাকায় নানা রকমের আলোচনা হচ্ছে। তবে আমরা মেয়েটির বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলাম। তিনি বলেছেন, মেয়েটির ইতালি যাওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আর তার জামাইয়ের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ রয়েছে।

Advertisement