Homeসব খবরবিনোদনপ্রধানমন্ত্রী বলেছেন তুমি খুব ভালো কাজ করেছো : ফারিয়া

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন তুমি খুব ভালো কাজ করেছো : ফারিয়া

শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) থেকে দেশের প্রায় সবগুলো প্রেক্ষাগৃহেই চলছে ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ ছবিটি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোটবেলা থেকে দেশ স্বাধীন এবং মৃত্যু অব্দি প্রেক্ষাপট তুলে আনা হয়েছে ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’ নামের ছবিটিতে। ইতিহাসের এই চিত্রায়ন ইতোমধ্যে যারা দেখেছেন, তাদের মুখেই প্রশংসার বুলি।

গত বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) সকালে এবং সন্ধ্যায় দুটি প্রিমিয়ার করা হয় ‘মুজিব’ সিনেমার। প্রথমটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য, দ্বিতীয়টি গণমাধ্যমকর্মী ও বিনোদন অঙ্গনের বিশিষ্টজনদের জন্য।

প্রধানমন্ত্রীর শো-তে হাজির ছিলেন ‘মুজিব’র শিল্পীরাও। এই ছবিতে শেখ হাসিনার চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরাত ফারিয়া। ফলে তার মনে উচ্ছ্বাস ছিল কিঞ্চিৎ বেশি। সেই সময়টা নিয়ে ফারিয়া বললেন, “প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সিনেমাটা দেখার সুযোগ হয়েছে। আমি যেখান থেকে দেখছিলাম, তার ঠিক পেছনেই প্রধানমন্ত্রী বসে ছিলেন। তো যে মুহূর্তেই আমি পর্দায় আসছিলাম, চুপিসারে পেছনে তাকিয়ে তাকে দেখছিলাম, তার কী এক্সপ্রেশন। সিনেমা শেষে যখন তাকে জিজ্ঞেস করলাম, আমি কি করতে পেরেছি? তিনি সুন্দর একটা হাসি দিয়ে বলেছেন, ‘তুমি খুব ভালো কাজ করেছো। অনেক মিষ্টি লেগেছে।’ এটা শুনে কেমন লেগেছে, বোঝাতে পারবো না। আমি আপ্লুত।”

শেখ হাসিনার ভূমিকায় কাজ করতে গিয়ে তার সম্পর্কে বিস্তরভাবে জেনেছেন নুসরাত ফারিয়া। সেই সুবাদেই বললেন, ‘এই সিনেমার একটা অংশ হতে পারাই আমার জীবনের অন্যতম বড় অর্জন। বিশেষ করে আমাকে যে চরিত্রটা দেওয়া হয়েছে, আমি মনে করি আমি অনেক ভাগ্যবান। পরে কী হবে জানি না, তবে এর আগে তার (শেখ হাসিনা) চরিত্র কখনও কেউ পর্দায় করেনি। কাজ করার সময় আমার মনে হয়েছিল, আমাদের প্রত্যেকটা বাঙালি মেয়ের মধ্যে একটা করে হাসিনা রয়েছে। তার সরলতা, তার মিষ্টিভাব, তার ইনোসেন্স, পরিবারের প্রতি ভালোবাসা, সব কিছু মিলিয়ে প্রত্যেকটা বাঙালি মেয়ের মধ্যেই একটা করে হাসিনা রয়েছে।’

‘মুজিব’ সিনেমায় বঙ্গবন্ধুর ভূমিকায় অভিনয় করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন আরিফিন শুভ। চারদিকেই তার জয়ধ্বনি। খোদ প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত তাকে বিস্ময়ভরা কণ্ঠে বলেছেন, ‘কীভাবে করেছো? কীভাবে করলা এত সুন্দর করে!’

শুধু প্রশংসাই নয়, ‘মুজিব’ দেখার পর ছবির শিল্পী-কুশলীদের বিশেষ নৈশভোজেও ডাকেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবারের (১৩ অক্টোবর) সেই আয়োজনে শিল্পীদের একটি করে শুভেচ্ছা স্মারকও উপহার দিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের যৌথ প্রযোজনায় ৮৩ কোটি টাকা বাজেটে নির্মিত হয়েছে ‘মুজিব: একটি জাতির রূপকার’। এতে বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব রেনুর ভূমিকায় নুসরাত ইমরোজ তিশা ও প্রার্থনা ফারদিন দীঘি (রেনুর ছোটবেলার চরিত্রে), শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের ভূমিকায় শহীদুল আলম সাচ্চু, খন্দকার মোশতাক চরিত্রে ফজলুর রহমান বাবু, আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর চরিত্রে রাইসুল ইসলাম আসাদ, তাজউদ্দীন আহমদের চরিত্রে রিয়াজ, বঙ্গবন্ধুর পিতা শেখ লুৎফুর রহমানের চরিত্রে চঞ্চল চৌধুরী, মাতা সায়েরা খাতুনের চরিত্রে দিলারা জামান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর চরিত্রে তৌকীর আহমেদসহ শতাধিক অভিনয়শিল্পী ছবিটিতে কাজ করেছেন।

নয় বছর ধরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন নরেন্দ্র মোদি। তার রাজনৈতিক জীবনের উত্থানের গল্প কম-বেশি সকলের জানা। কিন্তু রাজনীতির বাইরে তার আরেকটি প্রতিভা রয়েছে, লেখালেখি। মাঝেমধ্যেই কবিতা লেখেন তিনি, লিখেছেন বেশ কিছু গানও। তবে এবার তার গান এসেছে প্রকাশ্যে, সাধারণ শ্রোতাদের মাঝে।

গানটির শিরোনাম ‘গারবো’। আসন্ন নবরাত্রি উৎসব উপলক্ষে গানটি প্রকাশ করেছে জাস্ট মিউজিক নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এটি গেয়েছেন তরুণ গায়িকা ধ্বনি ভানুশালি। যিনি ‘ভাস্তে’ গান দিয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

গানটি মূলত গারবা ঘরানার, যা গুজরাটের ঐতিহ্যবাহী নাচের নাম। উৎসবের আমেজ বাড়িয়ে দিতে ঐতিহ্য আর নৃত্যের আশ্রয় নিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। গানের কথায়ও উৎসব ও নবরাত্রীর মহাত্ম ফুটে উঠেছে। গানটির সংগীত পরিচালনা করেছেন তানিস্ক বাগচী।

বিশেষ এই গান নিয়ে টুইটারে নরেন্দ্র মোদি লিখেছেন, ‘অনেক ধন্যবাদ ধ্বনি ভানুশালি, তানিস্ক বাগচী এবং জাস্ট মিউজিকের গোটা টিমকে। ভীষণ ভালো লাগলো গারবার এই নতুন ভার্সন। আমি বহু বছর আগে যে গান লিখেছিলাম, সেটা আপনারা দারুণভাবে অ্যারেঞ্জ করেছেন। বহু বছর আমি কিছু লিখিনি। কিন্তু গত কয়েক দিনে আমি নতুন একটা গারবা লিখেছি। নবরাত্রির সময় সেটা শেয়ার করব।’

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাস্ট মিউজিকের মালিক অভিনেতা-প্রযোজক জ্যাকি ভগনানি। তিনি বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে এই অসাধারণ, স্মরণীয় গানে যুক্ত হতে পারা সত্যিই গৌরব ও আনন্দের। ‘গারবো’ আমাদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি।’

গায়িকা ধ্বনি ভানুশালির ভাষ্য, ‘শ্রদ্ধেয় নরেন্দ্র মোদি, আপনার লেখা এই গরবা গানটি ভীষণ পছন্দ হয়েছে। আমরা একদম নতুন রিদমে একটি ভিন্ন স্বাদের গান বানাতে চেষ্টা করেছি।’

গানের দৃশ্যে গুজরাটি নৃত্যশিল্পীদের সঙ্গে অংশ নিয়েছেন গায়িকা ভানুশালীও। প্রকাশের মাত্র পাঁচ ঘণ্টার মধ্যেই এর ভিউ ছাড়িয়েছে সাড়ে সাত লাখ। বোঝাই যাচ্ছে, মোদির লেখা, ভানুশালির কণ্ঠে গানটি বেশ পছন্দ করছে ভারতীয়রা।

Advertisement