Wednesday, September 28, 2022
Homeসব খবরজেলার খবরদিনাজপুরে পাকা তালের চাহিদা তুঙ্গে, প্রতি পিস ৫০ টাকা

দিনাজপুরে পাকা তালের চাহিদা তুঙ্গে, প্রতি পিস ৫০ টাকা

বাংলা ভাদ্র মাসের প্রথমেই দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে পাকা তাল বিক্রি শুরু হয়েছে। ভাদ্র মাস এলেই পাকা তালের বেচাকেনা শুরু হয়। তাল গাছের কাণ্ড থেকেও রস সংগ্রহ হয় এবং তা থেকে গুড়, পাটালি, মিছরি ইত্যাদি তৈরি হয়। পাকা তাল গ্রামগঞ্জে পিঠা তৈরীতে ব্যবহার হয়। দিন দিন পাকা তালের চাহিদা বাড়ছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

তাল বিক্রেতা সুশান্ত রায় বলেন, ভাদ্র মাস পাকা তালের মৌসুম। এখন পাকা তালের ব্যাপক চাহিদা থাকায় মানুষ বাজার থেকে পাকা তাল কিনে নিয়ে যায়। তালের রস বের করে পিঠা তৈরী করে। কেউ কেউ আবার পাকা তালের রস দিয়ে পাটালি, গুড় ও মিছরি তৈরী করে থাকে। গ্রাম থেকে পাকা তার সংগ্রহ করে হাট বাজারে বিক্রি করি। প্রতিটি তাল আকারভেদে ১৫-৫০ টাকা দরে বিক্রি করি। পাকা তালের ভালো দাম পাওয়ায় লাভবান হচ্ছি।

হাটের আরেক তাল বিক্রেতা রফিক বলেন, পাকা তাল সুস্বাদু রস পাওয়া যায়। যা থেকে পিঠা তৈরী করে খাওয়া হয়। এখন পাকা তালের বেশ চাহিদা রয়েছে। বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে ছোট বড় তাল সংগ্রহ করে হাটে এনে বিক্রি করি। আকারভেদে পাকা তাল ২০-৫০ টাকায় বিক্রি করি। পাকা তালের চাহিদা থাকায় এখন অনেক তাল বিক্রি করতে পারছি।

তাল ক্রেতা মিনু বেগম বলেন, বাজারে এখন পাকা তাল পাওয়া যাচ্ছে। তালের দামও হাতের নাগালে। পাকা তাল কিনে নিয়ে তার রসের সাথে নরিকেল, চিনি বা গুড় এবং চালের গুড়ো বা ময়দা মিশিয়ে সুস্বাদু পিঠা তৈরী করা যায়। সুজি, নারিকেল, চিনি বা গুড় মিশিয়ে খির তৈরী করা যায়। মালপোয়া ও পাটিসাপ্টাতেও পাকা তালের রস দেওয়া যায়। এখন গ্রামের মানুষ পাকা তাল দিয়ে পিঠা তৈরী করছে।

Advertisement