Homeসব খবরজেলার খবরদাম ৪ গুণ বেশি হওয়ায় বেড়েছে রঙিন ফুলকপির চাষ

দাম ৪ গুণ বেশি হওয়ায় বেড়েছে রঙিন ফুলকপির চাষ

প্রচলিত ফুলকপির চেয়ে ৪ গুণ দাম হওয়ায় মাগুরার অনেক কৃষকই চাষ করছেন রঙিন ফুলকপি সবজিটি।বাজারে এখন যে ফুলকপি পাওয়া যায় তা দেখতে অনেকটা সাদা। এবার শুরু হয়েছে রঙিন ফুলকপির আবাদ। যা চাষ করে সাড়া ফেলেছেন মাগুরার শ্রীপুর উপজেলায় হাজরাতলা গ্রামের সুশেন বালা ও দিপা বালা নামের দুই কৃষক। দেশে এবার শুরু হয়েছে রঙিন ফুলকপির আবাদ।

তারা জানান, এই জাতের ফুলকপির দাম প্রচলিত ফুলকপির চেয়ে ৪ গুণ বেশি। এছাড়া মাঠের ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে মাঠেই। দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন ক্রেতারা। কেউ কেউ এসেছেন চাষাবাদ শিখতে। মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালমা জাহান নিপা জানান, সাধারণ জাতের ফুলকপির চেয়ে এর পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। এছাড়া এর বাজার মূল্য অনেক বেশি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরচিালক সুফি মো. রফিকুজ্জামান জানান, ফসলটা একেবারে নতুন। আগামী বছর এটি পুরো মাঠে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

এবার প্রচলিত ফুলকপির চেয়ে ৪ গুণ দাম হওয়ায় মাগুরার অনেক কৃষকই চাষ করছেন রঙিন ফুলকপি সবজিটি।বাজারে এখন যে ফুলকপি পাওয়া যায় তা দেখতে অনেকটা সাদা। এবার শুরু হয়েছে রঙিন ফুলকপির আবাদ। যা চাষ করে সাড়া ফেলেছেন মাগুরার শ্রীপুর উপজেলায় হাজরাতলা গ্রামের সুশেন বালা ও দিপা বালা নামের দুই কৃষক। দেশে এবার শুরু হয়েছে রঙিন ফুলকপির আবাদ।

তারা জানান, এই জাতের ফুলকপির দাম প্রচলিত ফুলকপির চেয়ে ৪ গুণ বেশি। এছাড়া মাঠের ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে মাঠেই। দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন ক্রেতারা। কেউ কেউ এসেছেন চাষাবাদ শিখতে। মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সালমা জাহান নিপা জানান, সাধারণ জাতের ফুলকপির চেয়ে এর পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। এছাড়া এর বাজার মূল্য অনেক বেশি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরচিালক সুফি মো. রফিকুজ্জামান জানান, ফসলটা একেবারে নতুন। আগামী বছর এটি পুরো মাঠে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

Ads by Eonads

Advertisement