Wednesday, September 28, 2022
Homeসব খবরবিনোদনচোখ ও মনের দুই দিকেই শান্তি পেয়েছেন পূজা

চোখ ও মনের দুই দিকেই শান্তি পেয়েছেন পূজা

গত ১৭ মার্চ বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেয়েছে হৃদিতা। এবার হৃদিতার ফার্স্ট লুক প্রকাশ করে জানানো হলো মুক্তি তারিখ। আগামী ৭ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের উপন্যাস ‘হৃদিতা’ অবলম্বনে একই নামে নির্মিত হয়েছে ছবি‘হৃদিতা’।  ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ৫৫ লাখ টাকা সরকারি অনুদান পাওয়া সিনেমাটির নাম ভূমিকা ‘হৃদিতা’ চরিত্রে অভিনেত্রী করছেন পূজা চেরি। সিনেমাটি নির্মাণ করছেন যুগল নির্মাতা ইস্পাহানী আরিফ জাহান। সিনেমাটিতে পূজার নায়ক এবিএম সুমন।

নায়িকা পূজা বলেন, ‘হৃদিতায় উপন্যাসটি অনেক জনপ্রিয় একটি উপন্যাস। এই উপন্যাসটি যারা পড়েছেন তারা বলতে পারেন কতটা দারুণ গল্প এটি। ছবিটিও দারুণ হয়েছে।’ পূজা আরও বলেন, ধীরে ধীরে জেনে বুঝে পুরো কাজটি করেছি আমরা। আনিসুল হক স্যারের গল্প, গুণী পরিচালক, সহশিল্পী সবমিলিয়ে খুব চমৎকার ভাবে আমরা হৃদিতার শুটিং করি। আমার বিশ্বাস ছবিটি দেখে দর্শক ভালো গল্প দেখার আনন্দ নিয়ে হল থেকে বের হবেন।

সুনামগঞ্জের হাওরের মনোরম লোকেশনে হয়েছে ছবিটির গানের শুটিং। হাওরের বুকে ভেসে, বিস্তির্ণ জনপদে শুটিং অভিজ্ঞতা জানিয়ে পূজা বলেন, এমন নয়নাভিরাম লোকেশনে শুটিংয়ের কথা আমি কোনোদিন ভুলবো না। গানটা যেমন সুন্দর লোকেশনটাও তেমন সুন্দর ছিলো। অন্যান্য শুটিং শেষ হলে মনের মধ্যে কিছু না কিছু খচখচ করতে থাকে। কিন্তু হৃদিতার গানের মাধ্যমে শুটিং করে কী যে শান্তি পেয়েছিলাম বলে বোঝাতে পারবো না! শট দেয়ার পর স্ক্রিনে যখন নিজেকে দেখেছি অবাক হয়েছি। চোখের শান্তি মনের শান্তি সবই পেয়েছি। যোগ করেন পূজা চেরি। এই ছবিতে পূজার বাবা হিসেবে দেখা যাবে অভিনেতা মানস বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

ছবি নিয়ে এর পরিচালকদ্বয় বলেন, ‘আগে আমরা যখন নিয়মিত সিনেমা বানাতাম নান্দনিকতার চেয়ে বাণিজ্যিক বিষয়টি প্রাধান্য দিতাম। এখন সাধারণ সিনেমা হলে সেভাবে বাণিজ্য নেই। তাই দর্শক প্রশংসা করবে এমন সিনেমা নির্মাণ করেছি। আগামী ৭ অক্টোবর মুক্তি দেবো ছবিটি। এই মাল্টিপ্লেক্সগুলোতে ভালো চলবে বলে আমাদের বিশ্বাস।’

গত ১৭ মার্চ বিনা কর্তনে ছাড়পত্র পেয়েছে হৃদিতা। এবার হৃদিতার ফার্স্ট লুক প্রকাশ করে জানানো হলো মুক্তি তারিখ। আগামী ৭ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি। কথাসাহিত্যিক আনিসুল হকের উপন্যাস ‘হৃদিতা’ অবলম্বনে একই নামে নির্মিত হয়েছে ছবি‘হৃদিতা’।  ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ৫৫ লাখ টাকা সরকারি অনুদান পাওয়া সিনেমাটির নাম ভূমিকা ‘হৃদিতা’ চরিত্রে অভিনেত্রী করছেন পূজা চেরি। সিনেমাটি নির্মাণ করছেন যুগল নির্মাতা ইস্পাহানী আরিফ জাহান। সিনেমাটিতে পূজার নায়ক এবিএম সুমন।

নায়িকা পূজা বলেন, ‘হৃদিতায় উপন্যাসটি অনেক জনপ্রিয় একটি উপন্যাস। এই উপন্যাসটি যারা পড়েছেন তারা বলতে পারেন কতটা দারুণ গল্প এটি। ছবিটিও দারুণ হয়েছে।’ পূজা আরও বলেন, ধীরে ধীরে জেনে বুঝে পুরো কাজটি করেছি আমরা। আনিসুল হক স্যারের গল্প, গুণী পরিচালক, সহশিল্পী সবমিলিয়ে খুব চমৎকার ভাবে আমরা হৃদিতার শুটিং করি। আমার বিশ্বাস ছবিটি দেখে দর্শক ভালো গল্প দেখার আনন্দ নিয়ে হল থেকে বের হবেন।

সুনামগঞ্জের হাওরের মনোরম লোকেশনে হয়েছে ছবিটির গানের শুটিং। হাওরের বুকে ভেসে, বিস্তির্ণ জনপদে শুটিং অভিজ্ঞতা জানিয়ে পূজা বলেন, এমন নয়নাভিরাম লোকেশনে শুটিংয়ের কথা আমি কোনোদিন ভুলবো না। গানটা যেমন সুন্দর লোকেশনটাও তেমন সুন্দর ছিলো। অন্যান্য শুটিং শেষ হলে মনের মধ্যে কিছু না কিছু খচখচ করতে থাকে। কিন্তু হৃদিতার গানের মাধ্যমে শুটিং করে কী যে শান্তি পেয়েছিলাম বলে বোঝাতে পারবো না! শট দেয়ার পর স্ক্রিনে যখন নিজেকে দেখেছি অবাক হয়েছি। চোখের শান্তি মনের শান্তি সবই পেয়েছি। যোগ করেন পূজা চেরি। এই ছবিতে পূজার বাবা হিসেবে দেখা যাবে অভিনেতা মানস বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

ছবি নিয়ে এর পরিচালকদ্বয় বলেন, ‘আগে আমরা যখন নিয়মিত সিনেমা বানাতাম নান্দনিকতার চেয়ে বাণিজ্যিক বিষয়টি প্রাধান্য দিতাম। এখন সাধারণ সিনেমা হলে সেভাবে বাণিজ্য নেই। তাই দর্শক প্রশংসা করবে এমন সিনেমা নির্মাণ করেছি। আগামী ৭ অক্টোবর মুক্তি দেবো ছবিটি। এই মাল্টিপ্লেক্সগুলোতে ভালো চলবে বলে আমাদের বিশ্বাস।’

Advertisement