Wednesday, September 28, 2022
Homeসব খবরজেলার খবরগাড়ি পোড়ালে পথে বসা ছাড়া অন্য কোন উপায় থাকবে...

গাড়ি পোড়ালে পথে বসা ছাড়া অন্য কোন উপায় থাকবে না আমার : ব্যারিস্টার সুমন

সপ্তাহখানেক আগে ল্যান্ড ক্রুজার ব্র্যান্ডের নতুন গাড়ি কিনেছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। এর মধ্যেই দেশের রাজনীতির মাঠ উত্তপ্ত হয়েছে। এই অবস্থায় যদি তার নতুন গাড়ি কেউ আগুনে পুড়িয়ে দেয় তবে পথে বসা ছাড়া অন্য কোন উপায় থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী।

এ বিষয়ে একটি অনলাইনকে দেয়া সাক্ষাতকারে সুমন বলেন, ‘এক সপ্তাহ হলো নতুন গাড়ি কিনেছি। অনেকটা ‘ঋণ করে ঘি খাওয়ার মতো।’ এরইমধ্যে দেশে গাড়ি পোড়ানো, ভাঙচুর আর হরতাল শুরু হয়েছে। এখন যদি গাড়ি ভাঙচুরের কবলে পড়ে বা আগুনে পুড়ে তাহলে আমার পথে বসা ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না।’

এ সময় ব্যারিস্টার সুমন হরতাল ও গাড়ি পোড়ানোর রাজনীতি থেকে বেরিয়ে সবাইকে দেশের উন্নয়নে কাজ করার আহ্বান জানান। গাড়ি কেনার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ফুটবল খেলার জন্য ও বিভিন্ন প্রোগামে প্রতি সপ্তাহে দেশের কোনো না কোনো জেলায় যেতে হচ্ছে। পুরনো গাড়িতে লং জার্নি করি, এটা আমার পরিবারের কেউ চাচ্ছিল না। গাড়ি কেনাটা ‘ঋণ করে ঘি খাওয়ার মত’ হয়েছে। একটা ব্যাংক থেকে ৪০ লাখ টাকা লোন নিয়েছি। মাসে ৮০ হাজার টাকা করে পরিশোধ করতে হবে।’

সুমন বলেন, ‘আমি অনলাইন ও আইনপেশা থেকে যে টাকা ইনকাম করি, তা দিয়ে কিস্তি দিতে পারব। পুরনো গাড়ি ৩০ লাখ টাকায় বিক্রি করেছি। আমার পরিবারের সদস্যরাও গাড়ি কিনতে টাকা দিয়ে সহযোগিতা করেছেন। সব মিলিয়ে নতুন এই গাড়ি কিনেছি।’

তিনি বলেন, ‘আরেকটা কথা হচ্ছে, ঢাকায় আমার কোনো বাড়ি নেই। বেশিরভাগ সময় আমি গাড়িতেই থাকি। কিছুদিন ধরে আমি অসুস্থ হয়ে পড়েছি। তাই চিন্তা করলাম বেঁচেই যদি না থাকি, তাহলে কাজ করব কীভাবে? গাড়িটা অন্তত কিনি।’

এক প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘বাড়ির কনসেপ্টে আমি বিশ্বাস করি না। পাবলিক ডিলিংসের কারণে প্রায় সব সময় আমাকে বাইরে থাকতে হয়। সেজন্য আমি চিন্তা করলাম, বাড়ি যেহেতু নেই, অন্তত গাড়িটা ভালো হোক। তাহলে জান কিছুটা শান্তি পাবে।’

Advertisement