Wednesday, September 28, 2022
Homeসব খবরআন্তর্জাতিককলকাতার বাজারে দাম পাচ্ছে না ‘পদ্মার ইলিশ’

কলকাতার বাজারে দাম পাচ্ছে না ‘পদ্মার ইলিশ’

চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কলকাতার বাজারে আশানুরূপ দাম মিলছে না পদ্মার ইলিশের। সোমবার রাতে বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে ভারতে পৌঁছায় সাড়ে আট টন ইলিশ। রাতেই এই ইলিশ পৌঁছে যায় কলকাতার পাতিপুকুর এবং হাওড়ার মাছের আড়তে। এদিন সকালে প্রথম নিলামে পাইকারি আড়তদারদের আশা ছিল- এক কেজি সাইজের ইলিশের দাম উঠতে পারে ১২০০ থেকে ২০০ রুপি পর্যন্ত। কিন্তু কলকাতার বাজারে প্রত্যাশিত দাম পাইনি পদ্মার ইলিশ।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভারতে পদ্মার ইলিশ না এলেও সারাবছর ডায়মন্ডহারবার, দিঘা, মহারাষ্ট্র, মিয়ানমারের ইলিশ পাওয়া যায়। ভারতে পর্যাপ্ত ইলিশ পাওয়া গেলেও স্বাদে গন্ধে আলাদা মাত্রা যোগ করে বাংলাদেশের পদ্মার ইলিশ। কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের বাজারে যার জন্য পদ্মার ইলিশের দামেও ফারাক দেখা যায় আকাশ পাতাল।

তবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, চলতি বছর পদ্মার ইলিশ মাছ কলকাতায় বাজারজাতও হয়েছে নির্দিষ্ট সময়ের বেশ কিছুদিন পরে। ফলে বাজারে ব্যাপক চাহিদা থাকলেও মেলেনি আশানুরূপ দাম। মঙ্গলবার সকালে হাওড়া পাইকারি মাছের বাজারে পদ্মার ইলিশ নিলামে উঠলে ৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৬০০ রুপি, ৭০০-৮০০ গ্রাম ৭০০ রুপি এবং ১ কেজি ওজনের মাছ ১০০০ রুপি প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে যা ১১০০ থেকে ১২০০ রুপি প্রতি কেজি বিক্রি হতে পারে।

ভারতের ফিস ইমপোর্টার অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি সৈয়দ আনোয়ার মাকসুদ বলেন, আমদানি জটিলতায় গত বছরের মতো চলতি বছরেও একাধিক পার্বণ পেরিয়ে বেশ কিছুটা দেরিতে এসেছে পদ্মার ইলিশ। তা ছাড়া সাইজেও বেশ ছোট। তবে পরিমাণে কম হওয়ায় চাহিদা বেশি হবে এমনটাই আশা করা হয়েছিল। কিন্তুু এ দিন চাহিদার তুলনায় পাইকারি বাজারে দাম মিলেছে অনেকটাই কম। তবে পূজা যত এগিয়ে আসবে এবং ইলিশের সাইজ কিছুটা বড় হলে ইলিশের দাম ততই বাড়বে বলে আশা করছেন তারা।

এদিকে ভারতের আমদানিকারকরা বলছেন, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রায় প্রতিদিনই ৪০ থেকে ৫০ টন পর্যন্ত ইলিশ সীমান্ত পেরিয়ে ঢুকবে ভারতে। নির্দিষ্ট এই সময়ের মধ্যে ভারত আমদানি করতে পারবে ২৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ।

Advertisement