Friday, October 7, 2022
Homeসব খবরজাতীয়কর্মহীনদের ঘরে খাবার পৌঁছে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ

কর্মহীনদের ঘরে খাবার পৌঁছে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ

গতকাল রোববার (২৫ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে নতুনধারার নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকরা সমবেত হোন। পরে সেখান থেকে নতুনধারার চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদীর নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পল্টন মোড় এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা করেন।

কর্মহীন অসহায়-হতদরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারদের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়ার দাবিতে থালা, ঘটি-বাটি ও রিকশা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্র-যুব-জনতার রাজনৈতিক নতুনধারা বাংলাদেশ (এনডিবি)।

এসময় বক্তরা বলেন, ‘গেল বছরের মার্চ মাসে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার শুরুতেই সরকার তৎকালিন স্বাস্থ্যসচিব ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ভুল সিদ্ধান্তের কারণে অপরিকল্পিতভাবে সাধারণ ছুটি দিয়েছিলো। যার খেসারত দিতে অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু হয়েছে কোটি কোটি মানুষ। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বোঝানো হয়েছে তারা সকল দিক থেকে সফল। এই সফলতার মানুষকে মিথ্যা গল্প ফেঁদে দেশকে লকডাউনে ফেলা হয়েছে।’

নতুনধারা নেতৃত্বরা বলেন- ‘লকডাউন ঘোষণা দিয়ে গোদের উপর বিষফোঁড়ার মত মুভমেন্ট পাস নামক একটি যন্ত্রণাও চাপিয়ে দিয়েছে, অথচ এক মুঠ চালও সরকারের পক্ষ থেকে নিন্মবিত্তদের ঘরে পৌছানোর ব্যবস্থা করেনি। যার কারণে নিরন্নতা তৈরি হচ্ছে, মানুষ সংসার-সন্তানের ক্ষুধার জ্বালা মেটাতে ঘরের বাইরে বেরুতে বাধ্য হচ্ছে।’

‘করোনা পরিস্থিতিতে পরিকল্পিতভাবে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত নিন্মবিত্ত শ্রমজীবী ভাসমান মানুষদের খাবার নিশ্চিত করে তারপর লকডাউন দিয়ে দেশকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় এগিয়ে না নিলে কঠোর কর্মসূচী দেওয়ার ঘোষণা দেন তারা।’

মোমিন মেহেদী সভাপতির সমাপনীর বক্তব্যে বলেন- ‘করোনায় পুলিশ প্রশাসন নিম্ন আয়ের মানুষদের দুঃখ কষ্ট বোঝে না। মনে রাখবেন নিম্নবিত্তরা বোঝে শুধু ডাল-ভাত খেয়ে কোন রকম বেঁচে যেন থাকা যায়। গরীব-দুঃখী ও রিকশাওয়ালাদের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়ে তারপর লকডাউন কার্যকর করুন। ভাসমান মানুষদের পুনর্বাসন দিন, খাদ্য দিন, বাঁচার মত পরিবেশ দিন। না হয় লকডাউন তুলে নিন।’

Advertisement